মালয়েশিয়ায় বৈধতা পাচ্ছেন ৫ লাখ অবৈধ বাংলাদেশী

56


দেশরিভিউ সংবাদ:
প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের দীর্ঘ প্রচেষ্টায় শর্তসাপেক্ষে অবৈধ বাংলাদেশী অভিবাসীদের ১৬ নভেম্বর থেকে বৈধতা দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্র ও মানবসম্পদ মন্ত্রী।

গতকাল বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়া সরকারের স্বরাষ্ট্র ও মানবসম্পদ মন্ত্রীর এক বিশেষ বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতুক সেরি হামজাহ বিন জায়নুদ্দিন এ ঘোষণা দেন। বৈঠক শেষে দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানানও বলেন, আগামী সোমবার থেকে শুরু করে ২০২১ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত এসব অভিবাসীকে বৈধ করা হবে। এই ঘোষণার ফলে ৪ থেকে ৫ লাখ বাংলাদেশী অভিবাসীর বৈধ হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মনিরুছ সালেহীন এ তথ্য জানিয়েছেন।

সূত্র জানিয়েছে, মালয়েশিয়া সরকারের ইমিগ্রেশন বিভাগ, শ্রমবিভাগ এবং অন্যান্য সরকারী সংস্থাকে ইতোমধ্যেই বিষয়টি জানিয়ে দেয়া হয়েছে। গত বছর রি-হায়ারিং প্রোগ্রামে যারা বৈধ হতে পারেননি তারাও এ যাত্রায় বৈধ হওয়ার সুযোগ পাবেন। দালালমুক্তভাবে কর্মীদের বৈধ হতে হবে। দালালের মাধ্যমে গেলে বৈধতা দেয়া হবে না বলে মালয়েশিয়ার কর্তৃপক্ষ ঘোষণা করেছে। কেউ যদি দালালের মাধ্যমে বৈধ হওয়ার আবেদন করেন তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। রি-হায়ারিং কর্মসূচী বাতিল হয়েছিল দালালদের কারণে। এ কারণে মালয়েশিয়া কর্তৃপক্ষ আগে থেকেই কর্মীদের সতর্ক করে দিয়েছে।

প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব আহমেদ মনিরুছ সালেহীন বলেন, গত বছরের ডিসেম্বরে দুই দেশের মধ্যে যৌথ ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এরপর আর কোন বৈঠক হয়নি। তবে আমরা বসে ছিলাম না। মন্ত্রী ও সচিব পর্যায়ে কয়েক দফা বৈঠক করেছি। এরপর তো করোনা চলে এলো। করোনার মধ্যে আমরা বেশ কয়েকটি জুম মিটিং করেছি মালয়েশীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে। তারা প্রতিটি মিটিংয়েই আমাদের আশ্বাস দিয়েছে, যারা অবৈধ কর্মী রয়েছে তাদের বৈধতা দেয়া হবে। তবে তারা নতুন করে কর্মী নিয়োগের বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন আশ্বাস দেয়নি। আমরা মালয়েশিয়া নিয়ে বেশ চিন্তায় ছিলাম। দেশটিতে নানা কারণে বাংলাদেশের কয়েক লাখ কর্মী অবৈধ হয়ে পড়েন। তারা বৈধভাবে গেলেও নবায়ন হতে না পারার কারণে অবৈধ হয়ে পড়েন। কেউ কেউ রি-হায়ারিং কর্মসূচী চলাকালেও বৈধ হতে পারেননি। ফলে দেশটিতে আমাদের বিপুল পরিমাণ কর্মী অবৈধ হয়ে পড়েন। আমরা দেশটির কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সর্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে আজ কাক্সিক্ষত ফল পেয়েছি। এটা মন্ত্রণালয়ের জন্য বড় একটি সাফল্য।

SHARE