মাস্ক না পরায় সংঘর্ষ, তরুণী নিহত

152

‌।। দেশরিভিউ, আন্তর্জাতিক সংবাদ ।।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যায় ভারত করোনার অন্যতম হটস্পট যুক্তরাজ্যকে ছাড়িয়ে তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে। করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত পুরো ভারত। প্রতিনিয়ত আক্রান্তের রেকর্ড ভাঙছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ২৮ হাজার ৭০১ জন আক্রান্ত হয়েছে। যা একদিনে আক্রান্তের নতুন রেকর্ড। এ নিয়ে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৮ লাখ ৭৯ হাজারে ৪৮৭ দাঁড়ালো। মৃত্যু হয়েছে ২৩ হাজার ১৯৪ জনের।

এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ১০ দিনে দেশটিতে করোনায় ২ লাখের বেশি জন আক্রান্ত হয়েছে।

এরই মধ্যে উঠে এলো চাঞ্চল্যকর এক ঘটনা। মাস্ক না পরা নিয়ে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে দু’পক্ষে তুমুল মারামারি হয়েছে। সংঘর্ষের সময় বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে লাঠির আঘাতে এক তরুণীর মৃত্যু হয়েছে। গত ৩ জুলাই শুক্রবার রাজ্যের গুন্টুর জেলায় এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার (৪ জুলাই) হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে মেয়েটি।

এ বিষয়ে পুলিশ সূত্রের বরাতে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এই সময় জানায়, ঘটনার সূত্রপাত ৩ জুলাইয়ের কয়েকদিন আগে। ব্যক্তিগত কাজে ক্রান্তি ইয়ালামান্ডালা পাশের গ্রামে গিয়েছিলেন। তখন তার মুখে মাস্ক ছিল না। ওই সময় একদল যুবক এই নিয়ে প্রশ্ন করতেই দুই পক্ষের তর্ক-বিতর্ক শুরু হয়। পরে পরিস্থিতি শান্ত হলেও, ক্ষোভ জমে ছিল। এরপর ৩ জুলাই সেই যুবকদেরই মাস্ক ছাড়া দেখতে পান ক্রান্তির এক আত্মীয়। এবার ক্রান্তি তাদের ওপর চড়াও হন। মুখে কেন মাস্ক নেই, এই প্রশ্ন তুলে তাদের জেরা শুরু করেন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শুরু হয় হাতাহাতি। পরে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে দু’পক্ষ। এক পর্যায়ে বাবাকে বাঁচাতে ছুটে আসেন ক্রান্তির মেয়ে, ফাতিমা। ক্রান্তিকে লাঠি দিয়ে মারতে এলে রুখে দাঁড়ান তার মেয়ে। সেই সময় এক যুবক লাঠি দিয়ে ফাতিমার মাথার আঘাত করেন।

পরে তাকে গুন্টুরের জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। টানা এক সপ্তাহ চিকিৎসাধীন থাকার পর শনিবার ভোরে মৃত্যু হয় ফাতিমার। এরপরেই ক্রান্তির অভিযোগের ভিত্তিতে ৪ যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ।

SHARE