মির্জাপুরে ধর্ষণ মামলায় বিএনপি নেতা জুলহাস কারাগারে

94


।।রাব্বি ইসলাম, স্টাফ রিপোর্টার।।
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ধর্ষণের অভিযোগে মির্জাপুর পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জুলহাস মিয়াকে (৪৫) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার কিশোরী ১৫মে বুধবার বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ করলে অভিযুক্ত জুলহাসকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত মো. জুলহাস মিয়া উপজেলার গোড়াইল গ্রামের মো. আলাল মিয়ার ছেলে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ভাতগ্রাম ইউনিয়নের কাদের ইসলামের ১৩ বছরের মেয়ের মা-বাবার বিবাহ বিচ্ছেদের পর এবং মায়ের অন্যত্র বিয়ে হয়ে যায়। গত ২ বছর পূর্বে তার বাবা সৌদি আরব চাকুরীতে যাওয়ার কারণে তার চাচাত নানা অর্থাৎ জুলহাসের হেফাজতে রেখে যান। কিন্তু সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে তার বাড়িতে থাকাবস্থায় বিভিন্ন সময়ে নানা কৌশলে সে ঐ কিশোরীর শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিতো এবং গত ১ বছর যাবৎ তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে আসছিলো। সবশেষ গত ০৬ মে’১৯ রাত ১১ টার দিকে ঐ কিশোরীর ঘরে প্রবেশ করে জুলহাস তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে আবারও ধর্ষণ করে এবং ভয় দেখিয়ে এই কথাটি কেউ যেনো না জানে এই হুমকি দেয়। পরে ধর্ষণের ঘটনার কথা তার মাকে জানানোর পর জুলহাসকে জিজ্ঞাসা করলে হুমকি দিয়ে টাকার গরম দেখিয়ে চুপ থাকিতে এবং ভালো ছেলে দেখে বিয়ে দেয়ার কথা বলে। পরে বিষয়টি মির্জাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়ার পর জুলহাসকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় মির্জাপুর থানায় মামলা নাম্বার-১৭।

এ বিষয়ে মির্জাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ একেএম মিজানুল হক বলেন, এমন ঘটনার সংবাদে আমরা প্রাথমিক অনুসন্ধানে সত্যতা পাই এবং তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এই ঘটনায় থানায় ধর্ষণের দায়ে তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা হয়েছে এবং বৃহস্পতিবার সকালে তাকে টাঙ্গাইল কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে। ধর্ষণের শিকার ঐ কিশোরীকে মেডিকেল টেস্টের জন্য টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

SHARE