মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার : প্রধানমন্ত্রী

160

।।দেশরিভিউ, সংবাদ।।

মুজিববর্ষে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলার অঙ্গীকার জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, পিতা, তোমার কাছে আমাদের অঙ্গীকার, তোমার স্বপ্নের সোনার বাংলা আমরা গড়বই। আর সেদিন বেশি দূরে নয়।

আজ মঙ্গলবার মুজিববর্ষ উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। ভাষণটি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে নির্মিত ‘মুক্তির মহানায়ক’ অনুষ্ঠানে সম্প্রচার করা হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসজনিত উদ্ভূত পরিস্থিতিতে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে পরিবর্তন আনা হয়েছে। এ কারণে বিদেশি অতিথিদের সফর স্থগিত করা হয়েছে। ভুটানের রাজা জিগমে খেসার নমগেয়েল ওয়াংচুক নেপালের রাষ্ট্রপতি বিদ্যা দেবী ভান্ডারি, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরাস এবং ওআইসি’র মহাসচিব ড. ইউসুফ আল ওথাইমিনসহ বেশ কয়েকজন বিদেশি শুভাকাঙ্ক্ষী ভিডিও বার্তা পাঠিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। আমি তাদের ব্যক্তিগতভাবে এবং বাংলাদেশের জনগণের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

শেখ হাসিনা বলেন, আজকের এই মাহেন্দ্রক্ষণে আমি গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। শ্রদ্ধা জানাচ্ছি ১৫ আগস্টের শহিদদের প্রতি।

স্মরণ করছি জাতীয় চার নেতা এবং মুক্তিযুদ্ধের সব শহিদকে। নির্যাতিত মা-বোন এবং যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। মুক্তিযোদ্ধাদের সালাম।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজকের শিশু-কিশোর, তরুণ সমাজের কাছে আমার আবেদন- তোমরা দেশকে এবং দেশের মানুষকে ভালোবাসবে। অনেক ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের এই স্বাধীনতা। স্বাধীন জাতি হিসেবে বিশ্বসভায় মাথা উঁচু করে চলার উপযুক্ত নাগরিক হিসেবে তোমাদের নিজেদের গড়ে তুলতে হবে। ঠিক যেভাবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশের মানুষকে ভালোবেসেছিলেন, সেভাবেই ভালোবাসতে হবে। তার আদর্শে নিজেকে গড়ে তুলতে হবে।

ভাষণের শুরুতে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপনের বছরব্যাপী অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেশে ও দেশের বাইরে অবস্থানরত সব বাংলাদেশি নাগরিক ও বিশ্ববাসীকে শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার নিজের ও ছোট বোন শেখ রেহানার পক্ষ থেকেও সবার কাছে কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।

SHARE