রাজনৈতিক চাপ ও হুমকির পরেও পাহাড় থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অব্যাহত

601



।।দেশরিভিউ।।
হুমকি, রাজনৈতিক চাপ উপেক্ষা করে চট্টগ্রামে পাহাড়ের পাদদেশ থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত রেখেছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। এর আগে নগরীর লালখান বাজার এলাকায় মতিঝর্ণা পাহাড়ের পাদদেশে অভিযান চালাতে গিয়ে স্থানীয় বিএনপি ও আওয়ামী লীগ নেতাদের রোষানলে পড়ে অভিযানে নেতৃত্বে থাকা দলটি। নগরীর ব্যস্ততম সড়ক অবরোধ করে অভিযানও বন্ধ করতে বাধ্য করেছিলো প্রভাবশালী একটি মহল।

জানা গেছে, জেলা প্রশাসন, চট্টগ্রাম কর্তৃক পাহাড় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে চট্টগ্রাম মহানগরের ইতোমধ্যে তালিকাভুক্ত ১৭ টি পাহাড় ও পাহাড়ের পাদদেশে অবৈধ বসতি স্থাপন করে বসবাসকারী ৮৩৫ টি পরিবার উচ্ছেদ কার্যক্রম বাস্তবায়নে পরিবেশ অধিদপ্তর,চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন অঞ্চলের পরিচালক জনাব মোঃ আজাদুর রহমান মল্লিকের সভাপতিত্বে গঠিত সাব-কমিটি আজ তালিকাভুক্ত অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণ স্থাপনা অপসারণে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছে।

অভিযানের অংশ হিসাবে ৯ মে সকাল থেকে নগরীর একে খান এন্ড কোং এর মালিকানাধীন পাহাড়ে পরিচালিত এ উচ্ছেদ কার্যক্রমে নেতৃত্ব দেন জনাব শারমিন আকতার, সহকারী কমিশনার (ভূমি), আগ্রাবাদ সার্কেল ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং জনাব মোঃ তৌহিদুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি), কাট্টলী সার্কেল ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

এসময় বেসরকারি সংস্থার মালিকানাধীন একে খান এন্ড কোং এর পাহাড়ে পরিচালিত উচ্ছেদ অভিযানে ৭০ টি পরিবার এর স্থাপনার সাথে সংযুক্ত বিদ্যুৎ লাইন, গ্যাস ও পানি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। এসময় পিডিবি থেকে ইস্যুকৃত ৫ টি বিদ্যুৎ মিটার বিচ্ছিনসহ সংশ্লিষ্ট বিলের কপি জব্দ করা হয়েছে।

পাহাড় ব্যবস্থাপনা কমিটির সমন্বিত এ অভিযানে অংশ নিয়েছে সিএমপি পুলিশ। এসময় উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জনাব মিয়া মাহমুদুল হক, পরিদর্শক জনাব নূর হাসান সজীব, ওয়াসার উপ-সহকারী প্রকৌশলী বিকাশ চন্দ্র নাথ, পিডিবির উপ-সহকারী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান তালুকদার, ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার ইফতেখার উদ্দিন, কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোঃ লিঃ এর উপ-ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী জনাব মোঃ আলমগীর হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

SHARE