শেখ হাসিনাকে অনুকরণে নরেন্দ্র মোদী

1474

।।দেশরিভিউ ডেস্ক।।

ভারতের আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের মধ্যেই বাজারে আসতে চলেছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জীবনী নিয়ে চলচ্চিত্র ‘পিএম নরেন্দ্র মোদী’। ১২ এপ্রিল তা মুক্তি পাবে। আর দু’দিন বাদেই বেজে উঠবে দিল্লি দখলের পাঞ্চজন্য। ২৩শে মে শেষ হবে ভোটের লড়াই। বাংলাদেশে ডিসেম্বরের ৩০শে হয়ে গেল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। তাতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ বিরাট বিজয় অর্জন করে। সম্প্রতি বেশ কিছু মিল দেখা যাচ্ছে ভারত ও বাংলাদেশের ভোটের রাজনীতিতে, যা হয়তো কাকতালীয় কিন্তু নজর কেড়েছে পর্যবেক্ষকদের। খবর আনন্দবাজার

ভারতের আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বাজারে আসতে চলেছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জীবনী নিয়ে চলচ্চিত্র ‘পিএম নরেন্দ্র মোদী’। আগামী ১২ এপ্রিল ছবিটি মুক্তি পাবে। বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনের ঠিক আগেই ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’ নামে একটি চলচ্চিত্র মুক্তি পায়, যাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবনের দুঃখ-কষ্ট-সংগ্রাম-ব্যক্তিগত অনেক সত্য ও নিষ্ঠুর বিষয়বস্তু উঠে আসে। স্বল্পদৈর্ঘ্যের সিনেমাটি রাজনীতির মাঠে জনসংযোগের মাধ্যম হিসেবে কাজ করেছিল, যার লক্ষ্য ছিল ভোটের আগে শেখ হাসিনাকে  জনগনের কাছাকাছি নিয়ে যাওয়া। ভারতে বিবেক ওবেরয় অভিনীত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জীবনী নিয়ে ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ নামে চলচিত্রটি শেখ হাসিনার নির্বাচনী কৌশলের সাথে হুবুহু মিলে যাচ্ছে।

শেখ হাসিনার আরও একটি কৌশল পুরো অনুসরণ করছেন মোদী। তার নির্বাচনী প্রচারনায় টেনেছেন চলচ্চিত্র তারকাদের। বলিউড তারকাদের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদীর এখন দহরম মহরম সম্পর্ক। বরুণ ধবন, রণবীর সিংহ, রণবীর কপূর, আলিয়া ভট্ট, ভিকি কৌশল, সিদ্ধার্থ মলহোত্র, রোহিত শেট্টির মতো তারকা বেষ্টিত মোদীর ছবি এখন নির্বাচনী প্রচারনার সোস্যাল মিডিয়াতে। এই ছবি দেখলে মনে পড়বে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচারে বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেতা-অভিনেত্রী ফেরদৌস, রিয়াজ, পূর্নিমা, সুবর্ণা মোস্তফা, শমী কায়সারদের মধ্যমনি হয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাসিমাখা ছবির কথা।

ভোটের আগে শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগে যুক্ত হয়েছিলেন তারকা ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজা। অন্যদিকে ভারতীয় ক্রিকেট তারকা গৌতম গম্ভীর যোগ দিলেন নরেন্দ্র মোদী বিজেপিতে। এসব দেখে ভারতীয় বেরসিকরা প্রশ্ন করে বসে , মৌদি কি হাসিনার দেখানো পথে হাটছে?

গত নির্বাচনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারা নির্বাচনী জনসভার বক্তৃতায় বার বার ঘোষণা করেছিলেন, আওয়ামী লীগ দেশের ‘অতন্দ্র প্রহরী’। শেখ হাসিনার স্লোগান ‘অতন্দ্র প্রহরী’ আদলে নরেন্দ্র মোদীর দল বিজিপি নির্বাচনী জনসভায় ‘ম্যায় ভি চৌকিদার’ বলতে শোনা যাচ্ছে। এখানে মৌদির ‘চৌকিদার’ স্লোগানটি শেখ হাসিনার ‘অতন্দ্র প্রহরী’ স্লোগানের কার্বন কপি বলা যায়।

এভাবেই ভোট যখন ভারতের দরজায় কড়া নাড়ছে, ভোটারদের চায়ের আড্ডায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গল্প ততো বেশী উঠে আসছে। তাও আবার ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বদৌলতে।

SHARE