সঙ্গীতজ্ঞ সুবীর নন্দীর মৃত্যুতে শোকের ছায়া

237


।।দেশরিভিউ।।
অবশেষে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বরেণ্য সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী মারা গেছেন। মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ৪টায় তিনি মারা যান। সুবীর নন্দীর জামাতা রাজেশ সিকদার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে কিডনি ও হার্টের অসুখে ভুগছিলেন। সুবীর নন্দীর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে সংস্কৃতি অঙ্গনে।

এর আগে, সুবীর নন্দী গত ১২ এপ্রিল পরিবারের সবাইকে নিয়ে মৌলভীবাজারে আত্মীয়ের বাড়িতে এক অনুষ্ঠানে অংশ নিতে যান। ১৪ এপ্রিল ঢাকায় ফেরার ট্রেনে ওঠার জন্য বিকেলে মৌলভীবাজার থেকে শ্রীমঙ্গলে আসেন তারা। ট্রেনেই অসুস্থ হয়ে পড়েন সুবীর নন্দী। সেখান থেকে তাকে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ১৮ দিন ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন থাকার পর গত ৩০ এপ্রিল সিঙ্গাপুর নেওয়া হয় সুবীর নন্দীকে। সেদিন বিকেলেই সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে তার চিকিৎসা শুরু হয়। চিকিৎসা চলাকালীন সময়ে ৪ দফা হার্ট অ্যাটাক করেন এই গুণী শিল্পী। শনিবারও হার্ট অ্যাটাক করে অরগান ফেইল করেছিলো সুবীর নন্দীর। সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসকরা এরপর চারটি স্ট্যান্টিং (রিং পরানো) লাগিয়ে আইসিওতে রেখে শেষ চেষ্টা করেছিলো।

সিএমএইচে লাইফ সাপোর্টে থাকা সুবীর নন্দীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সুবীর নন্দীর চিকিৎসার বিষয়ে গত ১৯ এপ্রিল সন্ধ্যায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন সংগীত শিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ, তপন চৌধুরী, রফিকুল আলম ও ডা. সামন্ত লাল সেন। তখনই প্রধানমন্ত্রী সুবীর নন্দীর চিকিৎসা সংক্রান্ত কাগজপত্র সিঙ্গাপুরে পাঠানোর পরামর্শ দিয়েছিলেন। এর আগে ১৯৯৮ সালেও সুবীর নন্দীর চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রী দুই দফায় সব ধরনের সহযোগিতা দিয়েছেন।

দীর্ঘ ৪০ বছরের ক্যারিয়ারে আড়াই হাজারেরও বেশি গান গেয়েছেন তিনি। সংগীতে অবদানের জন্য চলতি বছর একুশে পদকে ভূষিত হন তিনি। পাঁচবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ছাড়াও অনেক পুরস্কারই রয়েছে বরেণ্য এই সংগীতশিল্পীর ঝুলিতে।

SHARE