সঙ্গীতে লালন কন্যা ফরিদা পারভিনের ৫০ বছর পূর্ণ

330

।।সায়ান আহমেদ, দেশরিভিউ।।

স্বনামধন্য কণ্ঠশিল্পী লালনকন্যা খ্যাত ফরিদা পারভিন সঙ্গীতজীবনে ৫০ বছর পূর্ণ করলেন। সম্প্রতি এক টকশোতে আলাপকালে তথ্য জানিয়েছেন গুণী শিল্পী।

১৯৫৪ সালে নাটোরে জন্ম হওয়া ফরিদা পারভিন বড় হয়েছেন কুষ্টিয়ায়। ১৯৬৮ সালে তিনি রাজশাহী বেতারে নজরুল সঙ্গীতেরজন্য নির্বাচিত হন। তার অনেক আগে থেকেই সঙ্গীত ভুবনে পদার্পন শিল্পীর। প্রথমে নজরুলগীতি দিয়ে শুরু করলেও তিনিপরবর্তীতে দেশাত্মবোধক গেয়ে বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেন ১৯৭৩ সালের দিকে। ধীরে ধীরে পল্লীগীতি এবং পরবর্তীতে লালনগীতি গেয়ে সারাদেশে তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন ফরিদা পারভিন।

ফরিদা পারভীনের বাবা প্রয়াত দেলোয়ার হোসেন পেশায় ছিলেন সাধারণ চিকিৎসক। মা রৌফা বেগম। ফরিদা পারভিনব্যক্তিগত জীবনে সন্তানের জননী। যার মধ্যে এক মেয়ে জিহান ফারিয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগ থেকে মাস্টার্সপাশ করেছেন আর তিন ছেলের মধ্যে বড় ছেলে ইমাম নিমেরি উপল ফিলিপাইনের বাগিও বিশ্ববিদ্যালয়ে বিবিএ অধ্যায়নরত, মেজ ছেলে ইমাম নাহিল সুমন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগে মাস্টার্স পড়ছেন এবং ছোট ছেলে ইমাম নোমানি রাব্বিকুষ্টিয়া থেকে এসএসসি পাশ করেছে।

ফরিদা পারভিন ফুকুওয়াকা এশিয়ান কালচারাল প্রাইজ ২০০৮ সেরা সঙ্গীতের জন্য পুরষ্কৃত হন। এছাড়া একুশে পদক ১৯৮৭এবং জাতীয় চলচ্চিত্র পদকে ছায়াছবির গানে সেরা কন্ঠদানকারী হিসাবে ১৯৯৩ সালে পদক পেয়েছেন।

SHARE