সমতায় বাংলাদেশ

30

টানা পাঁচ ম্যাচ হারার পর টি-টুয়েন্টিতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। ফ্লোরিডায় তিন ম্যাচ টি-টুয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে উইন্ডিজকে ১২ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। তামিম সাকিবের ফিফটি আর মুস্তাফিজ-নাজমুল অপুর দুর্দান্ত বোলিং পারফরম্যান্সে সিরিজে সমতা ফিরিয়েছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের দেয়া ১৭২ রানের জবাবে শুরুটা শুভ হয়নি ওয়েস্ট ইন্ডিজের। স্কোরবোর্ডে ৫ রান তুলেই সাজঘরে এভিন লুইস। এলবিডব্লিউর ফাঁদে ওপেনারকে ফেরান মুস্তাফিজুর রহমান। ক্যারিবীয় শিবিরে দ্বিতীয় আঘাতটিও হানেন কাটার মাস্টার। মুশফিকে মারলন স্যামুয়েলসকে ফিরিয়ে সেই চাপ অব্যাহত রাখেন সাকিব আল হাসান। আর এলবিডব্লিউর ফাঁদে দিনেশ রামদিনকে ফেলে প্যাভিলিয়নে পাঠান রুবেল হোসেন।

একে একে টপর্ডারের সবাই ফিরলেও টিকেছিলেন আন্দ্রে ফ্লেচার। রোভম্যান পাওয়েলকে নিয়ে দুরন্ত গতিতে ছুটছিলেন তিনি। ধীরে ধীরে উইন্ডিজের আশা জাগাচ্ছিলেন তিনি। অবশেষে নাজমুল ইসলামের দুর্দান্ত ঘূর্ণিতে তালগোল পাকিয়ে সাকিবকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ফ্লেচার।

এর আগে, লডারহিলের ট্রু ব্যাটিং উইকেটে পাওয়ার প্লের ছয় ওভারে ১৯ ডট। এক জোড়া উইকেট হারিয়ে টাইগার বোর্ডে জমা জয় মাত্র ৩৫। লিটনের মত ব্যাটিং অর্ডারে প্রমোশন পেয়েও ফেল মেরেছেন মুশফিক।

এক প্রান্তে ক্যালকুলেটিভ তামিম। ম্যাচ কান্ডিশন আর বলের মেরিট বুঝে ব্যাট চালিয়েছেন টাইগার ম্যান ইনফর্ম। তবে আরও এক দফায় সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি সৌম্য সরকার। ৪৮ রানে তিন উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে বাংলাদেশ।

তবে উইকেটে এসেই ম্যাচের মোমেন্টান চেঞ্জ করে দিয়েছে সাকিব। ওর অ্যাগ্রেশনে চাপ সামলে ঘুরে দাড়িয়েছে বাংলাদেশ। চতুর্থ উইকেট জুটিতে ৩৩ বলে পঞ্চাশের যোগান। ৩৫ বলে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের ছয় নাম্বার হাফ সেঞ্চুরি করেছেন তামিম।

ম্যাচের ষোলতম ওভারে তামিম এক্সপ্লুশন। আন্দ্রে রাসেলের প্রথম পাঁচ বলে তিন ছক্কা আর এক চারে তুলেছেন ২২। ওই ওভারের শেষ বলে আউট হওয়ার আগে ৪৪ বলে টাইগার ওপেনারের নামের পাশে ৭৪।

তামিম বিদায় নিলেও থেমে থাকেননি সাকিব। ৩০ বলে করেছেন সপ্তম টি-টোয়েন্টি ফিফটি। পাক্কা ১৬ ম্যাচ পর আর অধিনায়কত্ব করা তের ম্যাচে সাকিবের পয়লা পঞ্চাশ। ৯ চার এক ছক্কায় ৬০ রান করেছেন টাইগার ক্যাপ্টেন।টাইগারদের ১৭১ রানের টোটাল।

দেশরিভিউ/এস এস