সরকারী প্রটোকল ছাড়া শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেলকে দেখে সকলেই হতভম্ব!

452

।।দেশরিভিউ সংবাদ।।

দু:স্থশিশু ও অক্ষম বৃদ্ধদের এক টাকার বিনিময়ে খাবার বিতরন করে আসছে ‘বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন’ নামে একটি সেচ্ছাসেবী সংগঠন। প্রতিদিন ১২০০ জনের খাবারের আয়োজন করা হয় ‘এক টাকায় আহার’ নামের একটি প্রজেক্টের মাধ্যমে।

সমাজের বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষের আর্থিক সহযোগিতায় প্রতিদিন এ বিশাল আয়োজন। বিশাল এ কর্মযজ্ঞে প্রতিদিন সেচ্ছাশ্রম দিতে আসেন অনেকে। কেউ রান্না করছেন, কেউ রান্নায় সহযোগিতা করতে আসেন। আবার অনেকে আসেন খাবারগুলো বিভিন্ন রেল স্টেশন, ফুটপাতে বা রুটিন করা বিভিন্ন গ্রামের স্কুলগুলোতে পৌছে দেওয়ার কাজ করতে।

শনিবার (১১ জানুয়ারি) বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন হঠাৎ হাজির হয়েছেন বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। উপমন্ত্রীর আকস্মিক আগমনে বিস্মিত হয়েছেন সকলে। কারন সরকারী কোন প্রটোকল কিংবা রাজনৈতিক কোন নেতাকর্মী সাথে করে আনেননি শিক্ষা উপমন্ত্রী। উপমন্ত্রী একাই আসলেন, যতক্ষণ ছিলেন ততক্ষণ শ্রম দিয়েছেন সাধারণ স্বেচ্ছাসেবীর মতো, সময় কাটিয়েছেন বাচ্চাদের সাথে। ফেরার আগে আড়ালে ডেকে তুলে দিলেন ৫,০০০ জনের আহারের টাকা।

বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রিসভার একজন সদস্যের এমন সাদাসিধে আচরনে মুগ্ধ হয়েছেন ফাউন্ডেশনের সদস্যরা। ছোট ছোট বাচ্চারা যখন শুনলেন তাদের শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেল তাদের সামনে দাডিয়ে আছে, তারাও আনন্দ এবং খুশির উল্লাসে ফেটে পড়েছিলো। এ যেন বিস্ময়কর এক পরিবেশ, মনমুগ্ধকর কিছু সময়।

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের এমন সাদাসিধে উপস্থিতি দেখে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের ‘এক টাকায় আহার- 1 Taka meal’ প্রজেক্টের ফেসবুক পেজে একটি পোষ্ট করা হয়েছে।

দেশরিভিউ পাঠকদের জন্য তা সম্পূর্ন তুলে দেওয়া হলো..

“হাঁটতে হাঁটতেই ঢুঁ মেরে গেছেন তিনি। মন্ত্রীর প্রটোকল কিংবা রাজনৈতিক নেতাদের সাথে আনেন নি, সহকর্মীদের অনুরোধ করেছেন নীচে থাকতে। বাসায় ফেরার পথে তিনি একাই আসলেন, যতক্ষণ ছিলেন ততক্ষণ শ্রম দিয়েছেন সাধারণ স্বেচ্ছাসেবীর মতো, সময় কাটিয়েছেন বাচ্চাদের সাথে। ফেরার আগে আড়ালে ডেকে তুলে দিলেন ৫,০০০ জনের আহারের টাকা।

পেজে বেশ আগে ম্যাসেজ করে শাখায় আসার উৎসাহ দেখিয়েছিলেন। হুট করেই আসবেন বলে আয়োজনে নিষেধ করেছেন। তাই স্বেচ্ছাসেবকদেরও জানানো হয় নি, হয় নি কোন বক্তব্য অনুষ্ঠান। তিনি কিছুক্ষণ একান্ত সময় কাটিয়ে গেছেন বিদ্যানন্দে পড়ুয়া বস্তির ছিন্নমূল শিশুদের সাথে।”

ভালো থাকুন সাদা মনের মানুষ, ভালো রাখুন বাংলাদেশকে।

 

SHARE