সারাদেশে চিকিৎসা বন্ধের হুমকি দেওয়া ডা. ফয়সালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি মন্ত্রণালয়

7805

।দেশরিভিউ।

জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ও বর্তমান সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজার বিরুদ্ধে ফেসবুকে স্ট্যাটাস ও কমেন্ট করায় ৬ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে শোকজ নোটিশ জারি করেছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ।

কিন্তু বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন-বিএমএ, চট্টগ্রামের সাধারন সম্পাদকের মত দায়িত্বশীল পদে থেকেও সারাদেশে চিকিৎসা বন্ধের হুমকি দেওয়া আলোচিত ডা: ফয়সাল ইকবালকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় শোকজ না করায় জনমনে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, নড়াইলের সাংসদ মাশরাফি বিন মুর্তজার আকস্মিক জেলা সদর হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসক না পাওয়ার পর ওই হাসপাতালের চার চিকিৎসকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। চার চিকিৎসককে ওএসডি করার খবরে ক্ষিপ্ত হয়ে ডা. ফয়সাল ইকবাল চৌধুরী সারা দেশে চিকিৎসা সেবা বন্ধ করে দেওয়ার ইঙ্গিত করে রীতিমত হুংকার দিয়েছিলেন। ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে তিনি সারাদেশের চিকিৎসকদের ধর্মঘটের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে উস্কানিমূলক এক পোস্টে লিখেছিলেন, ‘চলেন না একদিন সারাদেশের চিকিৎসকরা ওয়াকওভার ওয়াকওভার খেলি, তাহলে বুঝত চিকিৎসক কি? তার প্রয়োজন আছে কিনা?’

ডা: ফয়সাল ইকবালের দেওয়া সেই ফেইসবুক স্ট্যাটাসের পর সারাদেশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে বিরুপ প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছিলো।

গতকাল মঙ্গলবার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ থেকে এ শোকজ নোটিশ জারি করা হয়। অভিযুক্ত ৬ জন চিকিৎসককে নােটিস প্রাপ্তির ৩ (তিন) কর্মদিবসের মধ্যে কারণ দর্শানাের জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কিন্তু শোকজকৃত চিকিৎসকদের মধ্যে ডা: ফয়সাল ইকবালের নাম থাকায় মন্ত্রণালয়ের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

SHARE