সূর্যে ইউএফও’র কাজ কি?

134
‘নক্ষত্রের মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে কল্পনাতীত জ্বালানী শক্তি।’ একদল বিজ্ঞানী বহু আগে থেকেই এমন দাবি করে আসছেন। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা’ও বিষয়টি অস্বীকার করেনি। তবে সূর্যের কাছে যাওয়া দূরে থাক, মঙ্গলেই মানুষ পাঠানো নিয়ে গবেষণায় ব্যস্ত বিজ্ঞানীরা। এর উপর রয়েছে সূর্যের তেজ। ফলে সূর্যের জ্বালানী সংগ্রহ বিজ্ঞানীদের কাছে এক প্রকার স্বপ্নের মতো।

সম্প্রতি এলিয়েন বিশ্বাসীরা একটি ছবির ভিডিও নিয়ে ব্যাপক আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। ভিডিওতে সূর্যের আশপাশে সিগার আকৃতির একটি ইউএফও’র ব্যস্ত চলাফেলা করতে দেখা গেছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি স্টার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ইউফোমেনিয়া নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে নাসা’র ফাঁস হওয়া ভিডিওটি প্রথম প্রকাশ করা হয়।

তবে ইউএফও ম্যানিয়ার অ্যাডমিন দাবি করেছে, তারা এই ছবিটি হেলিওভিভিউয়ার (helioviviewer.org) ওয়েবসাইটে প্রথম খুঁজে পায়। এরপর তারা তা ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আকারে প্রকাশ করে।

ইউএফও ম্যানিয়ার পক্ষ থেকে জানানো হয় তারা ভিডিও পরীক্ষা করে ধারণা করছেন, সিগার আকৃতির মহাকাশ যানটি দৈর্ঘ্যে ১৫ হাজার ৫৩৪ মাইল এবং প্রস্থে ৭ হাজার ৪৫৬ মাইল হতে পারে। বিশাল এই মহাকাশযানটি সূর্যের আশপাশে জ্বালানী সংগ্রহের উদ্দেশ্যেই ঘোরাফেরা করছে বলে তাদের বিশ্বাস।

কেউ কেউ অবশ্য এটিকে সূর্য্যের আলোর প্রতিফলন বলে মনে করছেন। কেউ আবার একে ফটোশপের কারসাজি বলেও দাবি করেছেন। তবে ইউএফও বিশ্বাসীরা বলছেন, সূর্যের যে অফুরন্ত জ্বালানী শক্তি রয়েছে এবং তা ভিনগ্রহের বুদ্ধিমান প্রাণীরা যে ব্যবহার করে থাকে তা আবারও প্রমাণ হলো।

দেশরিভিউ/শিমুল

SHARE