১৯৭৪ সালে জিয়াকে যে কারণে বরখাস্ত করার কথা ছিল

462


।।দেশরিভিউ নিউজ।।

জিয়ার বিরুদ্ধে অসততা, সেনাবাহিনীতে গোলযোগ সৃষ্টি ও পাকিস্তানীদের এজেন্ট হিসেবে কাজ করার অভিযোগ ছিল। এছাড়াও মদ্যপান ও বহুগামিতার কারণে তিনি জটিল যৌনরোগে আক্রান্ত হন। ধারণা করা হয়, ওসমানী তাকে এ সকল কারণেই বরখাস্ত করেছিলেন এবং শফিউল্লাহকে সেনাপ্রধান করার হয় কারণও এটি।

পাকিস্তানের গোয়েন্দা বাহিনীতে কর্মরত থাকাকালে নিয়াজির রক্ষিতা সৈয়দা বোখারীর গেস্টহাউজে জিয়ার নিয়মিত যাতায়াতের বিষয়টি ওপেন সিক্রেট ছিল। ১৯৭০ সালে তার এসিআর এ লেখা ছিল:
“He was charged by Military police several times for visiting brothel several times and he was treated for VD in Pakistan.”

তথাপি নিয়াজির সুপারিশে জিয়াকে ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট এ পাঠান হয়।

স্বাধীনতার পর জেনারেল ওসমানী বাংলাদেশ আর্মী হেডকোয়ার্টারে একটি ডক্যুমেন্ট পেশ করেন যেখানে ডাক্তার নুরুল ইসলামের মন্তব্য লেখা ছিল:
“Under section 55 he was given 28 days restriction for visiting red light district and his medical report said his VDRL was positive and 2 million units of penicillin treatment was given”

উক্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, বহুগামিতার কারণে জিয়া যৌন রোগে ভুগছিলেন। এজন্য তাকে পেনিসিলিন ট্রিটমেন্ট নিতে হয়।

জিয়ার বহুগামিতা সম্পর্কে অভিমতের পাশাপাশি একটি চাঞ্চল্যকর তথ্য ছিল যে, জিয়ার শুক্রাণু নিষিক্ত হতো না, অর্থাৎ তিনি সন্তান জন্মদানে সক্ষম ছিলেন না।

সূত্র: ইনসাইড আইএসআই (বইয়ের বাংলা অনুবাদ শীঘ্রই প্রকাশিত হবে।)

SHARE