২২ হাজার পর্ন সাইট বন্ধ করা হয়েছে: সংসদে মোস্তাফা জব্বার

201

।দেশরিভিউ-জাতীয়।

ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে টেলিকম সাইবার সিকিউরিটি নামে একটি প্রকল্প কাজ করছে। এর কাজ শেষ হলে ডিজিটাল নিরাপত্তার ক্ষেত্রে সমস্যা থাকবে না বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বাব। ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সির মাধ্যমে ২২ হাজার পর্ন সাইট ইতোমধ্যে বন্ধ করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) জাতীয় সংসদের অধিবেশনে বিএনপির সদস্য হারুনুর রশিদের এক সম্পূরক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী এ তথ্য জানান। এসময় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, সত্যি সত্যি এটি একটি গরুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ডিজিটাল নিরাপত্তা কেবলবাংলাদেশের বিষয় নয়, এটা সমগ্র বিশ্বের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। ডিজিটাল নিরাপত্তার জন্য গতবছর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ পাস হয়েছে। এই আইনের আওতায় একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সি গঠন করা হয়েছে। এই এজেন্সির মাধ্যমে ২২ হাজার পর্ন সাইট ও কয়েক হাজার জুয়ার সাইট বন্ধ করা হয়েছে।

‘ফেসবুক-ইউটিউবে যে ধরনের পর্ন সংক্রান্ত বা নোংরা-অশ্লীল তথ্য উপাত্ত দেওয়া হয় সেগুলো অপসারণ করার ব্যবস্থা নিয়েছি। টিকটক নামক একটি অ্যাপ আছে যেটি দিয়ে এ ধরনের নোংরামি করা হয়, সেটিও বন্ধ করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর মাধ্যমে এ অবস্থাগুলো তৈরি হয়েছে। এই সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো বাংলাদেশের আইন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় না। এগুলো পরিচালিত হয় আমেরিকার সমাজিক, পারিবারিক আইন দিয়ে। আমেরিকার হস্তক্ষেপে চলে। তারা মূলত আমেরিকা স্ট্যান্ডার্ড অনুসারে চলে। আমাদের দেশে সেগুলোর কোনো অফিস নেই। সেগুলো আমাদের সরকার কোনো হস্তক্ষেপ করতে পারে কিনা?

টেলিকম বিভাগের অধীনে টেলিকম সাইবার সিকিউরিটি নামে একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। আগামী সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে এ প্রকল্পের কাজ শেষ  হবে। এই প্রকল্পের মূল্য উদ্দেশ্য ডিজিটাল নিরাপত্তা বিধান করা এবং একটি নিরাপদ ইন্টারনেটের ব্যবস্থা করা। আশা করছি প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হওয়ার পর যে ধরনের অবস্থা বিরাজ করছে সেই পরিস্থিতি আর থাকবে না।

SHARE