৫৪ বছর পর বাংলাদেশ-দার্জিলিং সরাসরি রেল যোগাযোগ

396

।দেশরিভিউ-জাতীয়।  

৫৪ বছর পর শুরু হতে যাচ্ছে ভারতের দার্জিলিং এর সাথে বাংলাদেশের সরাসরি রেল যোগাযোগ।বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এর উদ্বোধন করবেন।

১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধের সময় বাংলাদেশ ও ভারত সীমান্তে প্রায় ১১ কিলোমিটার রেলপথ তুলে ফেলা হয়। ৫৪ বছর পর দুই দেশের বন্ধুত্বের সুফল হিসেবে পুনরায় স্থাপিত হচ্ছে রেল যোগাযোগ।

গতকাল দুপুরে নীলফামারী চিলাহাটীতে ব্রডগেজ রেলপথের ভিত্তি প্রস্তর নির্মাণ কালে একথা বলেন রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রচেষ্টায় চিলাহাটি-হলদিবাড়ি ট্রেন রুটটি চালু হচ্ছে। এই পথ দিয়ে সহজেই এই অঞ্চলের মানুষ দার্জিলিং এবং কলকাতা যেতে পারবেন। ১৯৬৫ সালে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের পর এই রেলপথটি বন্ধ হয়ে গেলে আর চালু হয়নি। বাংলাদেশ-ভারত সরকারের উদ্যোগের ফলে সোনালী যুগ হিসেবে প্রসারিত হবে এই রেলপথ।

ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলী দাস বলেন, ভারত সরকার বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা, শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দিয়ে আসছে। রেলপথ চালু হলে ব্যবসা বাণিজ্যের সম্প্রসারণসহ বন্ধুত্বের সম্পর্ক আরও উন্নত হবে।

এই রেলপথ নির্মাণের ফলে চিলাহাটি-হলদিবাড়ি দিয়ে সহজেই এই অঞ্চলের মানুষ দার্জিলিং এবং কলকাতা যেতে পারবেন। এ প্রকল্পে ৮০ কোটি ১৭ লাখ টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে। আগামী জুন মাসের মধ্যে শেষ হবে নির্মান কাজ।

ভিত্তিপ্রস্থর উদ্বোধন কালে আরো উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুল দাস, রেলওয়ে মহাপরিচালক, আসাদুজ্জামান নুর এমপি, আফতাব উদ্দীন সরকার এমপি, রাবেয়া আলীম এমপি, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার সহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

SHARE