৭১ টাকায় নারীদের জন্য আবাসিক হোটেল ‘বাসন্তী নিবাস’ (ভিডিওসহ বিস্তারিত)

458


।।দেশরিভিউ ঢাকা।।
আজ নারী দিবসে যাত্রা করতে যাচ্ছে দেশের একমাত্র নারী আবাসিক হোটেল ‘বাসন্তী নিবাস’। আজ ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবসে উদ্বোধন করা হবে কেবল নারীদের জন্যই গড়ে তোলা এই ‘বাসন্তী নিবাস’। ঢাকার পল্লবী আবাসিক এলাকার (মিরপুর সাড়ে এগারো) রোডঃ ২/বি, বাসাঃ ১৩ তে অবস্থিত এই নারী আবাসিক হোটেলে মাত্র ৭১ টাকায় থাকার সুযোগ করে দিয়েছে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন।

ঢাকা শহরে কিংবা অন্য যে কোনও শহর এলাকায় একজন নারী শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে কিংবা চাকরির সন্ধানে বা কাজে এলে তাকে আবাসন সমস্যায় পড়তে হয়। শহরে পরিচিত বা আত্মীয়-স্বজন না থাকলে নারীদের অনেক শঙ্কা মাথায় নিয়ে উঠতে হয় আবাসিক হোটেলে। আর হোটেলে বসবাসের সময়টা একটু বেশি হলে নিরাপত্তার শংকা থাকে অনেকাংশেই। নারীদের আবাসনের এমন সংকট দূর করতে এবং নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে ‘বাসন্তী নিবাস’ তৈরি করেছে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন।

বাসন্তী নিবাসের ব্যবস্থাপক রাহিমা আখতার বললেন,
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তিচ্ছুরা ৭১ টাকায় পরীক্ষার আগের রাত ও পরীক্ষার দিনের রাত থাকার সুযোগ পাবেন এই হোটেলে। আর চাকরিপ্রার্থীরা একেক রাত ২৯৯ টাকায় থাকতে পারবেন। এছাড়া যেকোনো বয়সী নারী প্রতি রাত ৮৮০ টাকার বিনিময়ে বাসন্তী নিবাসে থাকতে পারবেন। তবে বিশেষ সুবিধা পাবেন ঢাকার বাইরে থেকে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ও চাকরির পরীক্ষা দিতে আসা মেয়েরা।

তিনি জানান, বাসন্তী নিবাসে থাকলে সকালের নাস্তা দেওয়া হবে বিনামূল্যে। তাতে থাকবে কফি, কলা ও বিস্কুট। সঙ্গে থাকছে ওয়াইফাই, ওয়াশিং মেশিনের সুবিধা।
বাসন্তী নিবাসে দুপুর ও রাতের খাবারের ব্যবস্থাও আছে। তবে সেই খাবার কিনে খেতে হবে সেখানকার ভেন্ডিং মেশিন থেকে।

এই হোটেলের রুমগুলোতে প্রচলিত বেডের বদলে জায়গা করে নিয়েছে ছোট ছোট বাংক বেড, যেখানে থাকছে বিছানা, লাইট ও চার্জার পয়েন্ট। চারটি করে বাংক বেড রয়েছে একই ফ্রেমে। সঙ্গে লাগোয়া কাবার্ড। বিছানার নিচের দিকেও আলাদা লকার রয়েছে বড় ব্যাগ রাখার জন্য। প্রায় ১৭০০ বর্গফুটের এই বাসন্তী নিবাসে মোট ৩৬টি বেড রয়েছে। সবার জন্য কমন বাথরুম। খাওয়ার জন্য রয়েছে ছোট্ট প্যান্ট্রি, যেখানে বেঞ্চ ও লম্বা টুল দিয়ে করা হয়েছে বসার ব্যবস্থা।

প্রতিষ্ঠানটির পেছনের গল্প জানতে চাইলে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের একজন স্বেচ্ছাসেবী তরুণীর কথা উঠে আসে ব্যবস্থাপক রাহিমা আখতারের মুখে। ঐ তরুনী
তার স্বামীর সঙ্গে ঢাকায় এসেছিলেন ডাক্তার দেখাতে। আত্মীয়-স্বজন না থাকায় একটি আবাসিক হোটেলে ওঠেন তারা। সেখানে গভীর রাতে হোটেলের ম্যানেজারসহ কয়েকজন হাজির ‘বিশেষ সুবিধা’ চাইতে। প্রায় দুই ঘণ্টার বাদানুবাদ শেষে বোঝাতে সক্ষম হন, তারা স্বামী-স্ত্রী।
রাজধানীর বুকে এমন ঘটনা একেবারে বিরল নয়। এই শহরে কত নারীকে কতভাবে যে হয়রানির শিকার হতে হয়, তা ভুক্তভোগীরাই জানেন। আর ঢাকার বাইরে থেকে আসলে তো কথাই নেই। অথচ লেখাপড়া, চাকরিবাকরি, চিকিৎসাসহ নানা জরুরি কাজে প্রতিদিনই অসংখ্য নারীকে ঢাকায় আসতে হয়। রাজধানীতে অনেকেরই আত্মীয়-স্বজন না থাকায় পয়সা খরচ করে উঠতে হয় হোটেলে। আর সেখানেই থেকে যায় নিরাপত্তা ঝুঁকি।
মেয়েদের এমন সব সমস্যার কথা প্রায়ই উঠে আসে। এসব তিক্ত অভিজ্ঞতার পাশাপাশি ওই স্বেচ্ছাসেবীর ঘটনাটিই রেখাপাত করে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের দায়িত্বশীলদের মনে। আর তাই তারা সিদ্ধান্ত নেন, এই রাজধানীতে মেয়েদের জন্য নিরাপদ আবাসের ব্যবস্থা করবেন তারা।
সেই সিদ্ধান্ত থেকেই বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন চালু করেছে শুধুই মেয়েদের জন্য একটি হোটেল। ‘বাসন্তী নিবাস’ নামের এই হোটেলটি একইসঙ্গে দেশের প্রথম ক্যাপসুল হোটেলও। কথাগুলি বলছিলেন বাসন্তী নিবাসের ব্যবস্থাপক রাহিমা আখতার।

জানা গেছে, ফেসবুক পেজে যোগাযোগ করে বা ফোন দিয়ে বাসন্তী নিবাসে সিট বুকিং দেওয়া যাবে। এর জন্য অনলাইনে একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে হোটেলে এসেই জমা দিতে হবে অ্যাডমিট কার্ড, যা পরীক্ষা দিতে যাওয়ার আগে ফেরত দেওয়া হবে। চাকরিপ্রার্থীদের জন্যও চাকরির পরীক্ষার প্রবেশপত্রের কপি জমা দেওয়ার পাশাপাশি মূল কপি দেখাতে হবে। আর সবাইকেই জাতীয় পরিচয়পত্র (যদি থাকে) দেখাতে হবে।

বাসন্তী নিবাসের ফেসবুক পেজ https://www.facebook.com/bashonti.hotel/
বাসন্তী নিবাসের ঠিকানা : বাসা নং–১৩, রোড নং–বি/২, তৃতীয় তলা, পল্লবী আবাসিক এলাকা, মিরপুর সাড়ে এগারো, ঢাকা। যোগাযোগের নং–০১৮৪৪৫৪৬০০০।

SHARE