‘৮ ফেব্রুয়ারি পুলিশকে সহযোগিতা করবে আ.লীগ’

207

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রায় ঘিরে পরিস্থিতি মোকাবিলায় আওয়ামী লীগ পুলিশের পাশে থাকবে বলে জানিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ‘দেশের জনগণের জানমাল নিরাপত্তায় স্বার্থে প্রয়োজনে আমরা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে সহযোগিতা করব। আমরা এখন ক্ষমতায় আছি। গায়ে পড়ে আমরা কেন দেশে অশান্তি ডেকে আনব?’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তারা যদি উস্কানি দেয়, হাইকোর্টের সামনে প্রিজন ভ্যানে হামলা চালানোর মত পরিস্থিতি সৃষ্টি করে তাহলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পরিস্থিতি মোকাবিলা করবে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা তাদের সহযোগিতা করবে।’

মঙ্গলবার বিকেলে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সঙ্গে সহযোগী সংগঠনের নেতাদের এক যৌথসভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আজ থেকেই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সতর্ক থাকবে। ৮ তারিখে আমাদের পক্ষ থেকে কোনো প্রকার উস্কানি যেন না দেয়া হয় সেই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। হাইকোর্টের সামনে যারা এরকম হামলা করতে পারে তারা ৮ তারিখেও এই রকম ঘটনা ঘটাতে পারে। বিএনপির পক্ষে এটা অসম্ভব নয়।’

তিনি বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে তথ্য রয়েছে তারা দেশের বিভিন্ন স্থানে হামলা চালাতে পারে। যদি এরকম পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হয় জনসাধারণকে নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আইন শৃঙ্খলাবাহিনীকে সহযোগিতা করবে।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বেগম জিয়া আমাদের শত্রু নয়। বিএনপিও আমাদের শত্রু নয়। কিন্তু বিএনপি আমাদের শত্রু ভাবে। তা না হলে ১৫ আগস্ট খুনিদের মদদ দিত না। ২১ আগস্ট এই ধরনের হামলা করত না। বার বার আমাদের সাথে শত্রুতা করেছে। বিএনপি শত্রুতা ও প্রতিহিংসা রাজনীতি করে।’

তিনি বলেন, ‘ক্ষমতায় থাকলে কিছু না কিছু ভুল হবেই। আমরা ধোয়া তুলসী পাতা নই। এই দাবি আমরা করিও না। কিছু অনুপ্রবেশকারী দলের নামে অপপ্রচার করে। তারা কিন্তু ছাড় পাচ্ছে না। যেই অপরাধ করুক না কেন শাস্তি তাদের পেতেই হবে। ভালো কাজের জন্য পুরস্কার আর খারাপ কাজের জন্য তিরস্কার।’

ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে সভায় আওয়ামী লীগ নেতাদের মধ্যে মাহবুব উল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, এ কে এম এনামুল হক শামীম, মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, আব্দুস সবুর, হাবিবুর রহমান সিরাজ, সুজিত রায় নন্দী, দেলোয়ার হোসেন,  হারুনুর রশিদ, আবদুস সাত্তার, ফরিদন্নাহার লাইলী, ডা. রোকেয়া সুলতানা, ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, এস এম কামাল হোসেন, আনোয়ার হোসেন, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাদেক খান, শাহে আলম মুরাদসহ সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাদের মধ্যে যুবলীগের হারুনুর রশিদ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের মোল্লা মো. আবু কাওছার, মহিলা আওয়ামী লীগের সাফিয়া খাতুন, মাহমুদা বেগম ক্রিক, যুব মহিলা লীগের নাজমা আকতার, অপু উকিল, ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

দেশরিভিউ/তারেক

SHARE