ঘুষ-তদবির ছাড়া রেকর্ড সংখ্যক শিক্ষক নিয়োগ, প্রশংসায় ভাসছে সরকার

499


দেশরিভিউ সংবাদ।।
বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তৃতীয় ধাপে ৫৪ হাজারের বেশি শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি অনুসারে ৩৮ হাজার ২৮৬ টি পদে নিয়োগ সুপারিশ করেছে এনটিআরসিএ। সম্পুর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতিতে টেলিটকের স্বয়ংক্রিয় সফটওয়্যারের মাধ্যমে, যোগ্যতার ভিত্তিতে, উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী,  চয়েস করা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান  এবং মেধা তালিকার ভিত্তিতে এনটিআরসির আওতায় বিভিন্ন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এন্ট্রি লেভেলে এ ৩৮ হাজার ২৮৬ জন প্রার্থীকে  প্রাথমিকভাবে যোগ্য হিসেবে বিবেচনা করে গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশ করা হয়েছে। তার মধ্যে এমপিও ৩৪ হাজার ৬১০ জন এবং  ননএমপি ৩ হাজার ৬৭৬ জন। আর ১৫ হাজার ৩২৫টি পদে প্রার্থী ও আবেদন না পাওয়ায় নিয়োগ সুপারিশ করা হয়নি।

গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে প্রার্থীরা নিয়োগের এ সুপারিশ মোবাইল এসএমএস এর মাধ্যমে পেয়েছেন। কোন ধরনের অনিয়ম, ঘুষ কিংবা লবিং ছাড়া রেকর্ড সংখ্যক এ নিয়োগের ঘোষনা আসার পর থেকে প্রশংসায় ভাসছে সরকার ও শিক্ষা মন্ত্রনালয়। অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে সরকার এবং শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের প্রশংসা করেছেন।

সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত হবিগঞ্জের মো: আলমগীর মিয়া নিজের ফেসবুকে লিখেছেন, শুকরিয়া আলহামদুলিল্লাহ।
মানুষ যখন ভাবে ঘুষ, লবিং ছাড়া চাকরি হয় না তখন
এই মধ্য বয়সে এসেও এসব ফলাফল যেই যাই বলুক নিজেকে একটা তৃপ্তি এনে দেয় ৷ আবারো আলহামদুলিল্লাহ
দোয়া করবেন৷

ফয়েজ হাসান টুটুল ফেসবুকে লিখেন, গতকাল বাংলাদেশে রেকর্ড সংখ্যক বেকার ছেলে মেয়ের চাকুরী পেয়েছে। পৃথিবীর ইতিহাসে কোন দেশে একসাথে এতো চাকরি আগে কখনো পেয়েছে কিনা আমার ব্যক্তিগতভাবে জানা নাই। আপনাদের কারো জানা থাকলে তথ্য-প্রমাণসহ দয়া করে জানাবেন।
এই চাকুরী পাইতে কাউকে এক পয়সাও ডোনেশন বা ঘুষ দিতে হয় নাই। তথাকথিত প্রচলিত ডায়লগ সরকারি চাকরি পাইতে মামা খালু চাচার জোড় প্রয়োগ প্রয়োজন হয় কিন্তু জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা আবারো প্রমাণ করে দিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে সরকারি চাকরিতে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা এবং মেধাবীদের বরাবর মূল্যায়ন করা হয়।

রহিতুজ্জামান নাজমুল আহসান লিখেন, ৫-১৫ লক্ষ টাকায় ঘুষ দিয়ে চাকরি পাইলে ওই ব্যক্তিকে ধন্যবাদ দিতে ভুল তো করেন না। এমনকি অনেকে ঘুষ নেওয়া ব্যক্তিকে ধর্মের ভাই বাবা বানিয়ে ফেলে। অথচ কোনো ঘুষ তদবির ছাড়া ৫৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগ হলো। মুষ্টিমেয় ব্যক্তিরাও প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ দিল না! শিক্ষামন্ত্রনালয়কেও ধন্যবাদ দিল না! এজন্যই এই অকৃতজ্ঞ জাতি ভালো কিছুর যোগ্য না।

এসএইচ রিমু লিখেছেন, যে মানুষগুলো বলে ঘুষ ছাড়া চাকুরী হয়না, ওদের জীবনেও চাকরি হবে না। ধন্যবাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনার ডিজিটাল বাংলাদেশ এর সুফল পাচ্ছে বাংলাদেশ।
স্কুল কলেজ এ অযোগ্য লোকজন লাখ লাখ টাকার বিনিময়ে এতোদিন নিয়োগ পেয়ে শিক্ষা ব্যবস্থা যে শেষ করে দিছিলো, সেখান থেকে আপনি জাতিকে উদ্ধার করেছেন। আপনাকে আবারও ধন্যবাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী।

SHARE