শনিবার, মার্চ ২, ২০২৪

বখাটের ঘুষিতে প্রাণ গেল আনসার সদস্যের

রাজশাহীতে এক বখাটের ঘুষিতে মাইনুল ইসলাম (৪৫) নামে আনসার-ভিডিপির একজন সদস্য নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে আটটার দিকে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের প্লাটফর্মে তাকে ঘুষি মারা হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পর রাত সাড়ে ৯টার দিকে তিনি মারা যান।

নিহত মাইনুল ইসলামের বাড়ি রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মাঙ্গনপুর পালপুর গ্রামে। মাইনুল ইসলামকে ঘুষি মারার অভিযোগে তার সঙ্গে থাকা অন্যান্য আনসার সদস্যরা এক বখাটেকে ধরে ফেলেন। পরে তাকে রাজশাহী রেলওয়ে থানায় রাখা হয়। তবে তাৎক্ষণিকভাবে অভিযুক্ত বখাটের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

ঘটনাস্থলে দায়িত্বে ছিলেন আনসারের প্লাটুন কমান্ডার (পিসি) দেলোয়ার হোসেন। তিনি জানান, রাতে স্টেশনের প্লাটফর্মে ডিউটির সময় তাদের ইনচার্জ হিসেবে ছিলেন রেলওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহাদত হোসেন। পিসি দেলোয়ার হোসেন ও এসআই শাহাদত হোসেন স্টেশনের ৪ ও ৫ নম্বর প্লাটফর্মে ছিলেন। এখানে কয়েকজন বখাটেকে অস্বাভাবিকভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখে এসআই শাহাদত হোসেন তাদের চলে যেতে বলেন।

এ নিয়ে এই এসআইয়ের সঙ্গে তর্কে জড়ায় বখাটেরা। এক পর্যায়ে তারা গালাগালও শুরু করে। তখন এসআই শাহাদাত হোসেন এই বখাটেদের ধরার জন্য আনসার সদস্যদের নির্দেশ দেন। বখাটেরা ৩ ও ৪ নম্বর প্লাটফর্ম দিয়ে পালানোর সময় আনসার সদস্যরা তাদের ধরতে যান। এ সময়ে আনসার সদস্য মাইনুল ইসলামের বুকে ঘুষি মারে এক বখাটে। এতে মাইনুল ইসলাম পড়ে যান। আর অন্য আনসার সদস্যরা এক বখাটেকে ধরে ফেলেন।

ঘটনার পর মাইনুল ইসলামকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তার ইসিজি করা হয়। এরপর রাত সাড়ে ৯টার দিকে তিনি মারা যান। খবর পেয়ে নিহতের পরিবারের সদস্যরা হাসপাতালে আসেন। তাদের হৃদয়বিদারক আহাজারিতে হাসপাতালের পরিবেশ ভারি হয়ে ওঠে।

আনসারের প্লাটুন কমান্ডার দেলোয়ার হোসেন বলেন, এটি একটি হত্যাকাণ্ড। কর্তব্যরত অবস্থায় আনসার ভিডিপি’র সদস্যকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় আনসারের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করা হবে।

সর্বশেষ