সোমবার, এপ্রিল ২২, ২০২৪

মাদকসেবীর ছুরিকাঘাতে মাদক নিরাময় কেন্দ্রের কর্মচারী খুন

মাদকসেবীর ছুরিকাঘাতে মাদক নিরাময় কেন্দ্রের কর্মচারী খুন, ঢাকার কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন শাক্তা ইউনিয়নের ঘাটারচর এলাকায় এক মাদকাসক্ত যুবকের ছুরিকাঘাতে প্রত্যাশা মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রের কর্মচারী নিহত হয়েছে। নিহত কর্মচারীর নাম সৌমেন দাস (৩৫)। তিনি পিরোজপুর জেলার শাখাড়ীকাঠি গ্রামের সুকুমার দাসের ছেলে। তিনি ছয় বছর যাবৎ এই মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে চাকরি করতেন।

এ ঘটনায় পুলিশ ঘাতক মো. হযরত আলীকে (২০) আটক করেছে। শুক্রবার (২২ মার্চ) সকালে মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে আসা যুবক হযরত আলী ঘুমন্ত কর্মচারী সৌমেনকে ধারাল ছুরি দিয়ে গলায় আঘাত করলে সে ঘটনাস্থলেই মারা যায়।

খবর পেয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল পৌঁছে প্রত্যাশা মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রের মেঝেতে লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

মাদকসেবীর ছুরিকাঘাতে মাদক নিরাময় কেন্দ্রের কর্মচারী খুন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টরা।

আড়ও পড়ুন: জয়পুরহাটে কিশোর গ্যাংয়ের লিডারসহ গ্রেপ্তার ৮

এ বিষয়ে প্রত্যাশা মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্র কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তারা কথা বলতে রাজি হননি কেউ। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মচারী জানিয়েছেন নিহত সৌমেন দাসের কাছে গেটের চাবি থাকতো, হযরত আলী সে চাবি নিয়ে পালিয়ে যেতে চাইলে নিহত সোমেন চাবি দিতে অস্বীকার করায় হযরত আলী তার কাছে থাকা একটি ছুরি দিয়ে গলায় আঘাত করে তাকে হত্যা করে।

এ ব্যাপারে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল বলেন, ঘটনাটি মর্মান্তিক। এ বিষয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।

সর্বশেষ