রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০২৪

নারায়ণগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জে সিলভার ক্রিসেন্ট হাসপাতাল নামে একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় আনিকা আক্তার নামে এক গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। রোববার (২৪ মার্চ) দুপুরে শহরের চাষাঢ়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আনিকা সদর উপজেলার ফতুল্লার নয়াবাজার এলাকার রোমান মিয়ার স্ত্রী। এ সময় হাসপাতালের ভেতরে বিক্ষোভ ও ভাঙচুরের পর ম্যানেজারকে মারধর করে করে পুলিশের কাছে সোর্পদ করে নিহতের স্বজনরা।

নিহতের স্বজন ও স্বামী অভিযোগ, গত শনিবার সন্ধ্যায় চিকিৎসক সহকারী অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আল মামুনের তত্ত্বাবধানে টনসিলের অপারেশনের জন্য ক্লিনিকে ভর্তি করানো হয় আনিকাকে। অপারেশন শেষে ভোরে তার জ্ঞান ফেরলে ব্যাথা ও শ্বাসকষ্ট হলে চিকিৎসক তাকে ইনজেকশন পুশ করার পর তার মৃত্যু হয়। পরে লাশ রেখে ডাক্তার, নার্সসহ হাসপাতালে সবাই পালিয়ে যায়। চিকিৎসকের অবহেলায়ই মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারে দাবি তাদের। এদিকে মৃত্যুর খবর পেয়ে স্বজনরা এসে বিক্ষোভ করে ভাঙচুর করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি শাহাদাত হোসেন জানান, ৯৯৯ এ ফোন পেয়ে এখানে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। পরিবারের অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ঘটনায় হাসপাতালের দুইজনকে আটক করা হয়েছে। এর আগেও শহরের খানপুরে আল হেরা নামে আরেকটি হাসপাতালে একই চিকিৎসকের অধীনে টনসিলের অপারেশনের পর এক শিশুর মৃত্যু ঘটে। এ ঘটনার পর এখন পর্যন্ত হাসপাতালের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়নি জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। অভিযোগ রয়েছে, এই হাসপাতালটির কোন অনুমোদন ছিল না।

জেলা সিভিল সার্জনের মোবাইলে ফোন দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি। দেশব্যাপী অবৈধ ক্লিনিক হাসপাতাল বন্ধে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নির্দেশের পরও নারায়ণগঞ্জে কার্যকর কোন পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি এখন পর্যন্ত জেলা স্বাস্থ্য বিভাগকে। নামমাত্র বন্ধ ক্লিনিকে আবারও অভিযান চালিয়ে সেগুলো বন্ধ করে অভিযান সফল দাবি করে আসছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

সর্বশেষ