সোমবার, এপ্রিল ২২, ২০২৪

মোহাম্মদপুরে ‘কিশোর’ অপরাধী চক্রের ১৬ সদস্য আটক

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে ‘কিশোর’ অপরাধী চক্রের ১৬ সদস্য আটক ঢাকা উদ্যান ও চাঁদ উদ্যান এলাকায় চাঁদাবাজি ও বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত ‘কিশোর অপরাধী চক্রের’ ১৬ জনকে দেশীয় অস্ত্রসহ আটক করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলেন- ইসমাইল, আরিফ, ইমন, নাজমুল, নাদিম, মো. ওয়াকিল, মো. মোজাক্কিন, মান্না, সোহেল, জাহিদ, বেলাল, মো. দিপু, মো. শান্ত, মো. তাওসীফ, মো. তপু এবং লিটন মিয়া ওরফে সিএনজি লিটন।

মোহাম্মদপুরে ‘কিশোর’ অপরাধী চক্রের ১৬ সদস্য আটক, সোমবার র‌্যাব-২ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) শিহাব করিম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

শিহাব করিম বলেন, “রবিবার র‌্যাব-২ এর একাধিক আভিযানিক দল রাজধানীর মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যান ও চাঁদ উদ্যান এলাকায় অভিযান চালিয়ে ছিনতাই, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত ১৬ জনকে আটক করেছে। তাদের কাছ থেকে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে ব্যবহৃত দেশীয় অস্ত্র চাপাতি, ডেগার, ছুরি, চাকু, চাইনিজ কুড়াল, এন্টি কাটার ও বিভিন্ন দেশীয় ধারালো অস্ত্র জব্দ করা হয়।”

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, “ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে সক্রিয় হয়ে উঠেছে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা। বিভিন্ন মার্কেট ও সড়কগুলোতে ত্রাস সৃষ্টি করে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ছিনতাই ও চাঁদাবাজি করছে। মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যান ও চাঁদ উদ্যান এলাকায় বেশ কয়েকটি ‘কিশোর গ্যাং’ গ্রুপের চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় ঢাকা উদ্যান, চাঁদ উদ্যান ও বেড়িবাঁধ এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৬ জনকে আটক করা হয়।”

আটককৃতরা জিজ্ঞাসাবাদে র‌্যাবকে জানিয়েছেন, তারা ঢাকা উদ্যান, চাঁদ উদ্যান ও বেড়িবাঁধ এলাকায় চাঁদাবাজি ও অন্যান্য সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করতেন। এসব কিশোর অপরাধী ঈদ সামনে রেখে রাতের আঁধারে একা পথচারীদের আকস্মিকভাবে ঘিরে ধরে চাপাতিসহ ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক অর্থ ও মূল্যবান সামগ্রী ছিনতাই করে দ্রুত পালিয়ে যান। বিভিন্ন সময় চাঁদাবাজিসহ আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ঢাকা উদ্যান, চাঁদ উদ্যান ও বেড়িবাঁধসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে মারামারিসহ বিভিন্ন ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করতেন।

আড়ও পড়ুন: বস্তা পরিবর্তন করে সরকারি চাল বিক্রি, গ্রেপ্তার ১০

শিহাব করিম আরও জানান, আটককৃতরা দিনে আত্মগোপনে থেকে রাতে ছিনতাই ও চাঁদাবাজি করতেন। এদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মাদক, ছিনতাই ও মারামারি সংক্রান্ত মামলা রয়েছে এবং এসব মামলায় কারাভোগ করেছেন বলে জানা গেছে।

সর্বশেষ