প্রতি রাতে শিক্ষকের যৌন নির্যাতন, মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে গেল ছাত্র

339

যশোর প্রতিনিধি, দেশরিভিউ:
যশোরের ঝিকরগাছায় এক মাদ্রাসা ছাত্রকে (১৩) একাধিকবার বলাৎকারের অভিযোগে ইয়াকুব আলী নামে এক মাদ্রাসা শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বারবার যৌন নির্যাতনের মুখে মাদ্রাসা থেকে নির্যাতনের শিকার ছাত্র পালিয়ে যাওয়ার পর এ ঘটনা জানাজানি হয়। পরে মঙ্গলবার (০৫ জানুয়ারি) ওই শিক্ষককে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ বলছে, গ্রেফতার হওয়া ইয়াকুব আলী যশোরের শার্শা উপজেলার গোগা গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে এবং তিনি যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার শংকরপুর ইউনিয়নের কুমড়ি হাফেজিয়া মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করেন।

ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ভিকটিম ছাত্রের বাড়ি শার্শা উপজেলায়। গত বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) সে কাউকে কিছু না বলে মাদ্রাসা থেকে বাড়ি চলে যায়। পরদিন শুক্রবার পরিবারের সদস্যরা তাকে মাদ্রাসায় পাঠালে সে মাদ্রাসায় না যেয়ে আবারও বাড়ি ফিরে যায়। মাদ্রাসায় না যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে সে জানায় হুজুর তার সঙ্গে খারাপ কাজ করে। পরে ঘটনার বর্ননা দিয়ে মাদ্রাসা ছাত্র বলেন, গত ১৫ অক্টোবর থেকে ২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে বিভিন্ন সময়ে মাদ্রাসার শিক্ষক ইয়াকুব আলী মাদ্রাসায় তার শয়নকক্ষে ডেকে নিয়ে বলাৎকার করেন। এ ঘটনা কাউকে না বলার জন্য তাকে নির্দেশ দেন।

পুলিশ সূত্রে, সোমবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি জানাজানি হয়। এরপর স্থানীয় লোকজন শিক্ষক ইয়াকুব আলীকে আটকে রেখে বাঁকড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রে খবর দেন। পরে পুলিশ এসে ইয়াকুব আলীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
এ ঘটনায় মঙ্গলবার নির্যাতিত ছাত্রের বাবা থানায় মামলা করেন। এরপর শিক্ষক ইয়াকুব আলীকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

SHARE