শুক্রবার, মার্চ ১, ২০২৪

পাটের ন্যায্যমূল্য পাচ্ছেন না মাদারীপুরের কৃষকরা

উৎপাদন ভালো হলেও পাটের ন্যায্যমূল্য পাচ্ছেন না মাদারীপুরের কৃষকরা। এতে ফসল উৎপাদনে আগ্রহ হারাচ্ছেন অনেকেই। ফড়িয়া ব্যবসায়ীদের দাবি, সুতার মিলে চাহিদা কম থাকায় কমছে পাটের দাম।

মাদারীপুর সদর উপজেলার ছিলারচর হাটে সকালে পাট নিয়ে এসেছেন চর-কালিকাপুর গ্রামের কৃষক আউয়াল বেপারী। তার অভিযোগ, প্রতিমণ পাট উৎপাদনে ৪ হাজার খরচ হলে হাটে দাম পাচ্ছেন আড়াই হাজার থেকে ৩ হাজার টাকা। প্রতিবছর ব্যাংক ঋণ নিয়ে চাষাবাদ করলেও ফসলের ন্যায্যদাম না পাওয়ায় দুশ্চিন্তায় পাটচাষিরা।

কৃষকদের অভিযোগ, সার, কীটনাশক, ডিজেলসহ কৃষি উপকরণের মূল্য বেড়েই চলছে। অথচ, প্রতিবছরই কমছে পাটের মূল্য। এজন্য সিন্ডিকেটকেই দায়ী করছেন ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা।

ফরিয়া ব্যবসায়ীদের দাবি, সুতার মিলে চাহিদা কম থাকায় কৃষক পর্যায়ে কমছে পাটের দাম।

আর জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তা মো. বাবুল হোসেনের দাবি পাটের বাজার স্বাভাবিক রাখতে বিভিন্ন দপ্তরের সঙ্গে চলছে কার্যক্রম।

জেলায় ৩৫ হাজার ৭১৯ হেক্টর জমিতে উৎপাদন হয়েছে ৬১ হাজার ৬৯০ মেট্টিক টন পাট। প্রকার ভেদে প্রতিমন পাট বিক্রি হচ্ছে ১৮শ থেকে ৩ হাজার টাকায়। যা গত বছরের চেয়েও ৪শ- ৮শ টাকা কম।

সর্বশেষ